Mon. Oct 26th, 2020

প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন শাল্লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যকর্মীগণ !

নিজস্ব প্রতিনিধি-

বৈশ্বিক করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে অনেকটা নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান করে আসছেন সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীগণ। জনগণের মধ্যে চিকিৎসাসেবা প্রদান করতে গিয়ে এরইমধ্যে ৩জন চিকিৎসকসহ মোট ১৯জন স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যদিও তারা এরইমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন।
জানা যায়, দেশে করোনা ভাইরাস বিস্তার লগ্ন থেকে পিপিই (পারসোনাল প্রটেকশন ইক্যুইমেন্ট) ছাড়াই ওই হাসপাতালের চিকিৎসকগণ মরণের ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসাসেবা চালিয়ে যান। একসময়ে স্বল্প পরিমাণ পিপিই পেলেও চিকিৎসকসহ মোট ১৯জন স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। বর্তমানে তারা সুস্থ হয়ে পুনরায় নিরলস ভাবে চিকিৎসাসেবা চালিয়ে যাচ্ছেন ওইসব চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীগণ।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ কামরুল হাসান জানান, বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসাসেবা প্রদান করতে গিয়ে ডাঃ এস.এম. ইমরান হাসান সৈকত, ডাঃ সালমা বেগম, ডাঃ নিরূপম রায় চৌধুরী, সিনিয়র নার্স স্টাফ প্রমা রেখা, প্রধান সহকারি নিশিকান্ত তালুকদার, ষ্টোর কিপার জগন্নাথ রায়, ল্যাব: এ্যাসিসটেন্ট মোঃ সোহেল, সিএইচসিপি লক্ষী রাণী বৈষ্ণব, অপুর্ব বৈষ্ণব, স্বাস্থ্য পরিদর্শক রনদা প্রসাদ দাস, গোষ্টলাল দাস, স্বাস্থ্য সহকারি দ্বিপক কান্তি চৌধুরী, অজয়কৃষ্ণ সরকার, প্রবীর চন্দ্র দাস, মোঃ এনায়েত মিয়া, এম্বুলেন্স চালক শ্রী দূর্জয় সরকার ও আউট সোর্সিংয়ে কর্মরত ৪জন ৪র্থ শ্রেণি কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ কামরুল হাসান বলেন, হাসপাতালের চিকিৎসক ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীগণ করোনায় আক্রান্ত হলেও আমরা জনগণের মধ্যে চিকিৎসাসেবা প্রদানে কোনোরূপ কার্পন্য বা ত্রুটি করিনি। ওইসময়ে আমরা যারা সুস্থ ছিলাম সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনেকটা ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসাসেবা প্রদান করেছি। বর্তমানে কর্মরত সবাই চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *