Tue. Jun 15th, 2021

শুধু কর্মপরিকল্পনা প্রনয়ণ নয়, পরিকল্পনা ভিত্তিক সফল বাস্তবায়ন আমাদের গুরুদায়িত্ব –জেলা প্রশাসক, জাহাঙ্গীর আলম

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি-
‘বহুখাত ভিত্তিক বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করলেই হবে না, বরং এর যথাযথ বাস্তবায়ন নিশ্চিত করাও পুষ্টি সমন্বয় কমিটির গুরুদায়িত্ব’ এমন একটি মৌলিক উক্তি করেছেন সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। বুধবার ১৭ ফেব্রুয়ারী বেলা ১১ টায় জেলা শিল্পকলা মিলনায়নে অনুষ্ঠিত বার্ষিক পুষ্টি কর্মপরিকল্পনার অগ্রগতি ও কালেক্টিভ ইম্প্যাক্ট ফর নিউট্রিশন ইনিশিয়েটিভের সমাপনী কার্যক্রম শীর্ষক অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে উক্তিটি করেন তিনি।
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংবিধান যেখানে জনগণের পুষ্টি নিশ্চিতে নিশ্চয়তা প্রদান করেছে, তেমনি আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থা জাতিসংঘ ও বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার সাথে পুষ্টির উন্নয়নে বাংলাদেশও একাত্মা ঘোষনা করেছে এবং সার্বিক বিবেচনায় জাতীয় পুষ্টিনীতি ২০১৫ গ্রহণ করা হয়েছে ও গৃহীত পুষ্টিনীতি বাস্তবায়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২য় জাতীয় পুষ্টি কর্মপরিকল্পনা ২০২৫ অনুমোদন করেছেন। সেই সাথে স্বাস্থ্য ও পরিবরার কল্যণ মন্ত্রনালয় ২০১৮ সালের আগষ্ট মাসে এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে দেশের সকল জেলা ও উপজেলায় পুষ্টির উন্নয়নে পুষ্টি সমন্বয় কমিটি গঠনের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে মর্মে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তাগণ উল্লেখ করেন।
এরই ধারাবাহিকতায় পুষ্টি উন্নয়নে সহযোগি প্রতিষ্ঠান হিসেবে কালেক্টিভ ইম্প্যাক্ট ফর নিউট্রিশন ইনিশিয়েটিভ, কেয়ার বাংলাদেশ সুনামগঞ্জ জেলা ও প্রত্যেকটি উপজেলার পুষ্টি সমন্বয় কমিটির নিয়মিত সভা, প্রয়োজনীয় পরামর্শ, কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন, বাস্তবায়ন, অগ্রগতি, মাতৃদুগ্ধ কর্ণার স্থাপনসহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সহযোগিতাসহ কারিগরি সহযোগিতা প্রদান করেছে। কেয়ার বাংলাদেশ এর কালেক্টিভ ইম্প্যাক্ট ফর নিউট্রিশন ইনিশিয়েটিভ (সিআইফরএস) এর প্রকল্প সমাপনী অনুষ্ঠানে বার্ষিক পুষ্টি কর্মপরিকল্পনা ১৯-২০ এর অগ্রগতি প্রতিবেদন, বার্ষিক পুষ্টি কর্মপরিকল্পনা ২০-২১ ও উপজেলা পুষ্টি প্রোফাইল এই তিনটি প্রকাশনার মোড়ক উন্মূচন করে অতিথিবৃন্দ। তাছাড়া গত দু’বছরের বিভিন্ন কর্মপরিকল্পনার অগ্রগতি সম্পর্কিত কয়েকটি সচিত্র প্রতিবেদন পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থাপন করা হয়।
উক্ত সমাপনী সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ জাতীয় পুষ্টি পরিষদের মহাপরিচালক ডাঃ মোঃ খলিলুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। তাছাড়া সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ শামস উদ্দিন, বাংলাদেশ জাতীয় পুষ্টি পরিষদের সহকারি পরিচালক ডাঃ ফারজানা রায়হান, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আশরাফুল হক, স্বাস্থ্য কর্মসূচীর পরিচালক ডাঃ ইখতিয়ার উদ্দিন খন্দকার, ডাঃ এস.এম. মোস্তাফিজুর রহমান, কেয়ার বাংলাদেশর সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের অ্যাকটিং টীম লিডার মোহাম্মদ হাফিজুল ইসলাম বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন।
এছাড়াও সুনামগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলা পরিষদের সম্মানিত চেয়ারম্যানবৃন্দ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার প্রতিনিধিবৃন্দ, শিক্ষক প্রতিনিধিবৃন্দ, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীবৃন্দ, কেয়ার বাংলাদেশের টেকনিক্যাল অফিসার মোঃ আব্দুল আলীম, মোঃ আব্দুস শুকুর, মোঃ নাজমুল হাসান ও মোঃ আলা উদ্দিন উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এবং অনুষ্ঠানটির কারিগরি সহযোগিতায় কেয়ার বাংলাদেশ এর আইটি অফিসার এস.এম. নাসির হোসেন নিযুক্ত ছিলেন। তাছাড়া ফারজিয়া হক ফারিন (ডা:বি:) ও কেয়ার বাংলাদেশ এর কালেক্টিভ ইম্প্যাক্ট ফর নিউট্রিশন ইনিশিয়েটিভ, মনিটরিং ইভাল্যুয়েশন এন্ড ডকুমেন্টেশন অফিসার শ্রী অরূপ রতন দাশের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটি পরিচালিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *