Tue. Jun 15th, 2021

দৈনিক সুনামকণ্ঠের স্টাফ ও হাওর বাঁচাও আন্দোলনের নেতার চাঁদাবাজির অডিও ফাঁস !

শাল্লা প্রতিনিধি-

সুনামগঞ্জের দৈনিক সুনামকণ্ঠ পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার ও হাওর বাঁচাও আন্দোলনের শাল্লা উপজেলা শাখার সদস্য সচিব জয়ন্ত সেনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির এক অডিও রেকর্ড ফাঁস হয়েছে। এনিয়ে সারা উপজেলায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
জানা যায়, সাংবাদিক জয়ন্ত সেন হাওর বাঁচাও আন্দোলনের উপজেলা শাখার সদস্য সচিব। অথচ জয়ন্ত’র শাল্লার কোনো হাওরে একইঞ্চি জমিও নেই। এলাকায় প্রচার রয়েছে, যার কোনো জমিজমা নেই, শুধু সাংবাদিকতা করে সে কি ভাবে চলে। কিন্তু এবার ফাঁস হয়েছে তার আসল রহস্য। সে সাংবাদিকতা ও হাওর বাঁচাও সংগঠনের আড়ালে দীর্ঘদিন যাবৎ চাঁদাবাজি করে আসছে। গত ২০মে রবিবার সকাল ১০টা ৪৪মিনিটে জয়ন্ত সেন তার মোটরবাইক চালক উপজেলার ২নং হবিবপুর ইউনিয়নের রামপুর গ্রামের গজেন্দ্র সরকারের ওরফে (কাচু) ছেলে জান্টু সরকারের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে কর্মরত একজন  অফিস সহকারির নিকট থেকে চাঁদার টাকা নেয়। ওইসময় অফিস সহকারি গোপনে জান্টু সরকারের মাধ্যমে জয়ন্ত সেনের কথোপকতন রেকর্ড করেন।
অডিও রেকর্ডে উল্লেখ জান্টু সরকার বসুদেব দাসকে বলেন, সাংবাদিক জয়ন্ত সেন আমাকে পাঠিয়েছেন। আপনার বিরুদ্ধে ১কোটি ২৪লক্ষ ৮০হাজার টাকার অভিযোগ রয়েছে। তাই বিষয়টি নিয়ে কোনো নিউজ হবে না। আপনি আমার কাছে টাকা দিয়ে দেন। এক পর্যায়ে ওই অফিস সহকারির কাছ থেকে নিউজের ভয় দেখিয়ে ৪হাজার টাকা উৎকোচ নেয়।

অপদিকে গত ১৯মে শনিবার জয়ন্ত সেন ওই অফিস সুপারের ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে রাত ৯টা ৪৬মিনিটে একটি ম্যাসেজ পাঠান। ম্যাসেজে উল্লেখ, ‘দাদা, ২০২০-২০২১ pic থেকে বাৎসরিক ১,২৪,৮০,০০০/-! অভিযোগ খোদ্ পিআইসি কমিটির হিসাব ! আমার দায়িত্ব প্রকাশ করা। অবশ্যই আপনার অফিসে এসে স্বাক্ষাৎকার নেবো। প্রস্তুতি নিন’। ১৯মে ম্যাসেজটি পাঠিয়েই ২০মে সাংবাদিক জয়ন্ত সেন তার মোটরবাইক চালক জান্টু সরকারকে অফিসে পাঠান। অন্যদিকে ওই অফিস সহকারি ভীতসন্ত্রস্থ হয়ে নিউজের ভয়ে সাংবাদিক জয়ন্ত সেনের বাহককে ৪হাজার টাকা দেন এবং সম্পুর্ণ ঘটনাটি রেকর্ড করে রাখেন।
এবিষয়ে মোটরবাইক চালক জান্টু সরকারের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি প্রথমে অস্বীকার করেন। পরে তিনি বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে ওই অফিস সহকারির অফিসে গিয়েছিলেন বলে স্বীকার করেন।
এব্যাপারে সাংবাদিক জয়ন্ত সেনের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, এবিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *