Thu. Apr 22nd, 2021

এ হামলার ঘটনায় জড়িতদের ‘কোনো ছাড় দেওয়া হবে না — মহাপরিচালক, র‌্যাব।

শাল্লা প্রতিনিধি-
ফেইসবুকের একটি স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে সুনামগঞ্জের শাল্লায় হিন্দু গ্রামে হামলার ঘটনায় জড়িতদের ‘কোনো ছাড় দেওয়া হবে না’ বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন।
বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা উপজেলার হবিবপুর ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামের ক্ষতিগ্রস্থ বাড়িঘর ঘুরে দেখার পর তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।
র‌্যাব প্রধান বলেন, “নোয়াগাঁওয়ে হিন্দুদের ঘরবাড়িতে হামলার ঘটনায় জড়িতদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। যারা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির চেষ্টা করছে, তাদের দ্রুত আইনের আওয়তায় এনে বিচার নিশ্চিত করা হবে, যাতে আগামীতে এ ধরনের আর কোনো ঘটনা না ঘটে।”
পুলিশ ও স্থানীয়রা বলছেন, বুধবার সকালে ওই গ্রামে হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাঙচুর ও আসবাবপত্র তছনছ করে হেফাজতে ইসলামীর অনুসারীরা। খবর পেয়ে শাল্লা থানা পুলিশসহ ও দিরাই থেকে বিপুল সংখ্যক পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
গত সোমবার দিরাই উপজেলায় হেফাজতে ইসলাম আয়োজিত সম্মেলনে আসেন হেফাজতে ইসলামের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী ও যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকসহ কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা। সম্মেলনে মামুনুল হকের দেওয়া বক্তেব্যের সমালোচনা করে স্থানীয় এক হিন্দু যুবক তার ফেইসবুক ওয়ালে একটি পোস্ট দেন বলে পুলিশের ভাষ্যে জানা যায়।
শাল্লা থানার ওসি নাজমুল হক বলেন, “ওই ঘটনাকে ধর্মীয় উস্কানি আখ্যায়িত করে ওই এলাকার মামুনুল হকের অনুসারীরা মঙ্গলবার রাতে বিক্ষোভ মিছিল করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ সেই রাতেই ওই যুবককে শাল্লা উপজেলার শাসখাই বাজার থেকে আটক করে।
“বুধবার সকালে কাশিপুর, নাচনী, চন্ডিপুরসহ কয়েকটি মুসলিম অধ্যুষিত গ্রামের হেফাজত নেতা মামুনুল হকের কয়েক হাজার অনুসারী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে হিন্দু অধ্যুষিত নোয়াগাও গ্রামে অতর্কিত হামলা চালায়। হাজারো মানুষের আক্রমণে গ্রাম ছেড়ে আত্মগোপনে যায় ওইগ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন। এই সুযোগে হেফাজত নেতার অনুসারীরা গ্রামে প্রবেশ করে তছনছ করে দেয় সবকিছু। লুটপাট চালায় বিভিন্ন বাড়িতে।”
বৃহস্পতিবার ওই এলাকা ঘুরে স্থানীয়দের সাথে কথা বলার পর র‌্যাব মহাপরিচালক সাংবাদিকদের বলেন, “জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ আমাদের ঘায়েল করতে পারেনি। বড় বড় জঙ্গি, সন্ত্রাসবাদ যখন আমাদের ঘায়েল করতে পারেনি, তখন এখানকার উগ্রবাদীরাও দীর্ঘদিনের সম্প্রীতির পরিবেশ নষ্ট করতে পারবে না। বাংলাদেশ অপরাধ দমনে বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখে বিশ্ব দরবারে সুনাম অর্জন করেছে। সেভাবে অচিরেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী সন্ত্রাসীদের কালো হাত ভেঙে দেওয়া হবে।
“এই দেশ হিন্দুদের, এই দেশ মুসলমানদের, এই দেশ সবার। সবাই আমরা মিলেমিশে থাকব। বাংলাদেশ অসাম্প্রদায়িক দেশ। এখানে সবার সমান অধিকার রয়েছে। কেউ যদি সংখালঘুদের ওপর নির্যাতন করে তা সহ্য করা হবে না” বলেও জানান তিনি।
অপরদিকে ওই হামলার ঘটনায় শাল্লা থানায় একটি মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শাল্লা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাজমুল হক। তিনি আরো জানিয়েছেন আসামীদের গ্রেফতার করতে আইন-শৃংখলা বাহিনী সর্বত্মক চেষ্টা করছে।
অন্যদিকে ওইদিন বিকাল ৪টায় সুনামগঞ্জ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ হামলার শিকার নোয়াগাঁও গ্রাম পরিদর্শন করেন এবং গ্রামবাসির সাথে মতবিনিময় করেন। এসময় সুনামগঞ্জ জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এনামুল কবির ইমন গ্রামবাসিকে নির্ভয়ে অবস্থানসহ স্বাভাবিক জীবন-যাপন করার পরামর্শ দেন। সাথে সাথে তিনি আরো বলেন যে, উগ্রপন্থীরা যে ঘটনাটি ঘটিয়েছে তা হৃদয় বিদারক। এরকম জঘন্যতম অপরাধ মেনে নেয়া যায় না। আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রিও এসব অপকর্ম বরদাস্ত করবেন না। আপনারা কোনোরূপ চিন্তা করবেন না। সুনামগঞ্জ আওয়ামীলীগ আপনাদের পাশে আছে এবং পাশে থেকে সকল প্রকার আইনী সহায়তা করবে। তাছাড়া আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামবাসির মধ্যে মানবিক সাহায্যও প্রদান করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *